Download

বাংলাদেশে Facebook marketing এর সম্ভাবনা

download
  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Blogger

আসসালামু আলাইকুম, আমি শোভন বলছি আশা করি সবাই ভালো আছেন সবাইকে স্বাগতম জানিয়ে শুরু করছি আমার আর্টিকেল….

বিশ্বব্যাপী সামাজিক অনলাইন যোগাযোগ মাধ্যম গুলার কথা বলতে গেলে সর্বপ্রথম বলতে হই Facebook. আমাদের দেশেও এর বেতিক্ক্রম নই । মোবাইল কোম্পানি গুলার কল্যাণে বর্তমানে আমাদের দেশে ইন্টারনেট ইউজার এর সঙ্কা খুবই দ্রুত বিদ্দি পাচ্ছে । একটা জরিপ এ দেখা গেছে ২০০৮ এ আমাদের দেশে ফেসবুক ইউজার এর সঙ্কা ছিল প্রায় ১০০০০ যা বেড়ে বর্তমানে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৫০০০০০০০ এই হিসাবে সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকএ নতুন ব্যবহারকারীর সঙ্কা বিদ্দি পাচ্ছে যা দেশের জন্মহারের চেয়ে বেশি, যা বাংলাদেশে প্রতি 12 সেকেন্ডের মধ্যে ১ জন যোগ হচ্ছে ফেসবুকএ যার অধিকাংশ ইউজার আধুনিক, শিক্ষিত অথবা অর্ধশিক্ষিত। আপনি জেনে অবাক হবেন উন্নত দেসগুলাতে ৭০-৮০শতাংশ ক্রেতাই কিছু কেনার আগে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোর উপর নির্ভর করে, যার প্রবনতা আমাদের দেশেও দেখা যাচ্ছে । আর এরুপ অবস্তাই যদি ফেসবুকে আপনার ব্যবসার প্রচার না থাকে, তবে আপনি সেখানকার বিদ্যমান এবং সম্ভাব্য গ্রাহকদের হারাচ্ছেন এবং আপনার কোম্পানির বা আপনার পণ্যর publicity বাড়াতে বার্থ হচ্ছেন।আর তাই আপনি একজন ক্ষুদ ব্যবসায়ী বা বৃহৎ ব্যবসায়ী যাই হোন না কেন,আপনার পণনের প্রচার বাড়ানোর জন্য বা গ্রাহক ধরে রাখার জন্য বা ব্র্যান্ডের প্রচার বাড়ানোর জন্য বা ক্ষুদ্র আকারে বাসায় বসে ব্যবসা করার জন্য ফেসবুকএ  নেটওয়ার্ককিং করার মাধ্যমে ফেসবুক হলো একটি মূল্যবান মার্কেটিং মাধ্যম।

কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং শুরু করা যায়ঃ-

ফেসবুক এ তিনটি Tools আছে (pages, ads, and groups) এর এগুলা ব্যবহার করে খুব সহজে ফেসবুক এ মার্কেটিং করা যাই, আর এই অপশনগুলোর প্রতিটির নিজস্ব উদ্দেশ্য রয়েছে তবে এর perfectly ব্যবহার জানতে হবে।আমরা অনেকেই মনে করি পেজে বেশী বেশী লাইক আনাই ফেসবুক মার্কেটিং। যার কারণে একটা পেজ ওপেন করার সাথে সাথেই আমরা “০০০টাকায় ০০০০ লাইক নিন” এরূপ শিরোনামের অফার গুলোর দিকে ছুটে যাই। তারপর এক মাসে ৫০০০ লাইক হয়ে গেলেই আমরা খুশী হই মনে করি,আমার ফেসবুক মার্কেটিং হয়ে গেছে। অথচ এই সব ফেক লাইক কখনও

 

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Blogger

আপনার ব্যবসার প্রসারে হেল্প করে না এমন কি ৫০০০ হাজার আসল লাইক ও যদি আপনার পেজে থাকে তাহলেও ফেসবুকের নতুন নিয়ম অনুযায়ী পোস্ট এ বুষ্ট প্রমোশন না করলে আপনার বিজ্ঞাপন/পোষ্ট আপনার পেজের লাইক দেয়া মানুষ গুলোর মাত্র ১০% এর কাছেও পৌঁছাবে না।

তাহলে করণীয় কি?

আর এ জন্য প্রথমেই আপনাকে ব্র্যান্ডিং করতে হবে এটা হতে পারে আপনার পার্সোনাল ব্র্যান্ডিং অথবা কোম্পানির ব্র্যান্ডিং। এটার কারণ  অপরিচিত কাওকে মানুষ বিশ্বাস করতে চায় না আর যাকে বিশ্বাস হবে না তার কাছ থেকে আপনি কিছু কিনতেও চাইবেন না অথবা শুনবেন না তার কোনো কথা । তাই সবার আগে নিজের ব্র্যান্ডিং করে সকলের কাছে পরিচিত হয়ে ফলোযার বাড়িয়ে আস্থা অর্জন করুন এতে আপনার মার্কেটিংয়ের রাস্তা সহজ হবে। আর এ জন্য আপনাকে যা যা করতে হবে…

প্রথমেই আপনাকে তৈরী করতে হবে একটি ভালো ফেইসবুক প্রোফাইল।মনে রাখবেন ফেক প্রোফাইল এর কোন মূল্য নাই এতে আরও হিতেবিপরিত ঘটবে, গ্রহণযোগ্যতা হারাবেন।

আপনার প্রোফাইলএ সুন্দর সুন্দর স্ট্যাটাস দিতে শুরু করুন এছাড়া কমেন্ট চ্যাট ইত্যাদির মাধ্যমে নিজেকে অন্নের সামনে তুলে ধরুন।আর চেষ্টা করুন নিজের অনন্যতা প্রকাশ করতে যাতে সকলের মাঝে আপনাকে আলাদা করা যায়।

ফ্রেন্ড তৈরী করার বাপারে সতর্ক হন। সময় নিয়ে কাজটি করতে হবে যে কাওকে ফ্রেন্ড বানানো যাবে না। মনে রাখবেন  ১০০ টি অকর্মা মেম্বার থাকার চেয়ে একটি সক্রিয় মেম্বার থাকা ভালো। আর এমন কিছু করার চেষ্টা করুন যাতে আপনাকে সবাই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায়। আর এ জন্য নিয়মিত স্ট্যাটাস দেয়ার পাশাপাশি আপনি যে বিষয়ে দক্ষ সেই বিষয়ে আর্টিকেল বা তথ্য দিন এতে করে আপনার আলাদা একটা প্রভাব তৈরী হবে ।

আপনি যে বিষয়ে মার্কেটিং করতে চান তার উপর পোস্ট দিন তার ভালো মন্দ নিয়ে আলোচনা করুন।  শুরুতে বিক্রির অফার দেবেননা এতে খারাপ প্রভাব তৈরী হবে | এমন একটা অবস্থান সৃষ্টি করুন যে আপনি ঐ বিষয়টি ভালো ভাবে জানেন এবং কেউ প্রয়োজন হলে আপনার সাহায্য নিতে পারবে।

 

166850-1qToUN1388832967
  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Blogger
উপরের কাজ গুলি হলে আপনি একটা গ্রুপ খুলে ফেলুন।গ্রুপটি হতে হবে, আপনি যে বিষয়টি নিয়ে মার্কেটিং করবেন সেই রিলেটেড।

 

 

 

 

 

download (1)
  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Blogger

এর পরই আপনি চাইলে পেজ প্রমোশন করতে পারেন, পোষ্ট প্রমোশন করতে পারেন, এমন কি চাইলে আপনার অফার অথবা ওয়েবসাইট কেও সরাসরি প্রমোশন করতে পারেন। আপনার একটি International Debit/Credit Card থাকলেই আপনি ফেসবুক অ্যাড নিজেই দিতে পারবেন, কিন্তু, যে বিজ্ঞাপন টা দিচ্ছেন সেইটা আপনার টার্গেট কাষ্টমার এর উপযোগী করে তৈরি হয়েছে কিনা সেটা দেকতে হবে,আর এজন্য আপনাকে  আপনার business page এর niche related Competitor Analysis, Potential Customer Analysis, Market Analysis, Product & Price Strategy, Brand Strategy ইত্যাদি  সঠিক ভাবে করতে হবে এবং আপনার business page টি আকর্ষণীও ও সক্রিয় রাখতে continuous marketing করতে হবে আর একটি কথা আপনার পেজটি যত আকর্ষণীও হবে আর ক্রাইন্ত দের আস্থা অর্জন করতে পারলেই আপনি অধিক হারে viewers পাবেন আর সম্বাবভ ক্রেতা তত পাবার সভাবনা বারবে , মনে রাখবেন Marketing আসলে ডাল ভাতের মত। ডাল ভাত যেমন প্রতিদিন খাওয়া লাগে ঠিক তেমনি Marketing ও প্রতিদিন করা লাগে। কারন আপনি যেইদিন থেমে যাবেন আপনার প্রতিদ্বন্দ্বী কিন্তু থামবেনা। অল্প করে হলেও Marketing চালু রাখতে হবে প্রতিদিন। সব শেষে বলি এক একজনের স্ট্রাটেজি একেক রকম হবে । আপনার দক্ষতা এবং আইডিয়া আপনাকে সবার আগে রাখতে পারে । সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বিশাল একটি রাজ্য এর গভীরে প্রচারণার কৌসল এক একজনের একেক রকম । আপনার কার্যকর কৌসল নির্ধারণ করতে আপনাকে আরো পড়া শোনা করতে হবে । তাই এখানেই থেমে থাকবেন না কাজ শুরু করে দিন আজ থেকেই। সবার জন্য শুভকামনা…

 

Write Your Comment

Pin It on Pinterest

Shares
Share This