Upwork Freelancing

ফ্রিল্যান্সিং করে ঘরে বসে টাকা আয় করুন এবং দূর করুন আপনার বেকারত্বের অভিশাপ।

আচ্ছা বলুন তো একজন মানুষ কিভাবে অর্থ উপার্জন করতে পারে ? অনেকে ই ভাবছেন এটা আবার কেমন প্রশ্ন হল !!! অনেক ভাবেই তো করা যায়। এর কি কোন শেষ আছে নাকি। আসলেই এর কোন শেষ নেই । কিন্তু এর পরে ও আমাদের দেশে অনেক বেকার আছে যারা কিনা শত চেষ্টা করে ও কোন কাজ খোজে পায় না। আবার অনেকে আছে যাদের কিনা অফিসের গদবাধা যান্ত্রিক নিয়ম ভাল লাগে না। অনেকে ই যোগ্যতা থাকা সত্বেও টাকা এবং অভিজ্ঞতা না থাকার দুরুন চাকরি পাচ্ছেন না আবার ব্যবসা করবেন সেই টাকা ও নেই। অথচ তারা ইচ্ছা করলে কাজ শিখে সহজেই অনলাইনে কাজ করে দিব্যি টাকা পয়সা আয় করতে পারেন। যা কিনা ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং নামে পরিচিত। আর আজকে আমি আপনাদের সাথে এই ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আলোচনা করব। আশা করি কিছুটা হলে ও উপকৃত হবেন।
চলুন শুরু করা যাক,

ফ্রিল্যান্সিং কি ?

ফ্রিল্যান্সিং হল নিজের মত করে স্বাধীন ভাবে কাজ করা। এটি একটি স্বাধীন পেশা । অর্থাৎ আপনার যা করতে ভাল লাগে তাই করা এবং যার বিনিময়ে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন । এখানে আপনার বস আপনি আবার আপনার কর্মী ও আপনি মানে আপনি নিজে ই সর্বেসর্বা। এর কোন ধরা বাধা সময় নেই , নেই কোন নিয়ম। আর যারা এই কাজ করে তাদেরকে বলা হয় ফ্রিল্যান্সার।

ফ্রিল্যান্সিং কাদের জন্য ?

যে কোন লোক এই কাজ করতে পারে। কাজ জানলেই হল । আমাদের দেশে অনেক শিক্ষিত বেকার আছে যারা কিনা শুধুমাত্র একটি চাকরি পাবার আশায় দিন রাত বসে থাকে অথচ সহজেই তারা এই পেশায় নিজেকে একজন সফল মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে । এছাড়া চাকুরীজীবি , স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রী সবাই আসতে পারে এই স্বাধীন পেশায় । এক্ষেত্রে কোন বাধ্যবাধকতা নেই। দরকার শুধু কাজ জানা।

ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করতে হয় ?

ফ্রিল্যান্সিং এ অনেক প্রকার কাজ আছে । যেমন আপনি যদি ভাল আঁকা আঁকি করতে পারেন তাহলে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ করতে পারেন । আপনি সফটওয়্যার এর কাজ করতে পারেন। এস ই ও এর কাজ করতে পারেন। এর কোন শেষ নেই। মানে আপনার যেই কাজ ভাল লাগে আপনি সেই কাজই করতে পারবেন । নিচে কিছু কাজের তালিকা দেওয়া হল;
1. Seo
2. Cpa marketing
3. Video marketing
4. Web developing
5. YouTube AdSense
6. Graphics design
7. App development
এই কাজ গুলোর চাহিদা এখন অনেক। এছাড়া ও আরো অনেক কাজ আছে যা আপনি শিখতে পারেন।

কোথায় কাজ শিখবো ?

সবই তো বুঝলাম কিন্তু কাজ শিখবো কোথায় ? আগে এই কাজ শেখার জন্য অনেক কষ্ট করতে হত । কিন্তু এখন কোন চিন্তা নেই এর জন্য অনেক মাধ্যম আছে যেখান থেকে আপনি কাজ শিখতে পারবেন । কাজ শেখার জন্য অনলাইন এর সাহায্য নিতে পারেন । ইউটিউব , গুগল থেকে আপনি কাজ শিখতে পারেন । কিন্ত সেগুলো ইংরেজীতে হওয়ায় আমরা অনেকেই তা বুঝতে পারি না। তবে এখন অনেকেই বাংলায় বিভিন্ন রকম লেখা লেখি করছে যা থেকে আপনি সাহায্য পেতে পারেন। তবু আমরা অনেকেই তা বুঝতে পারি না। এজন্য সব থেকে ভাল হয় আপনি যদি কারো কাছ থেকে হাতে কলমে শিখতে পারেন। যেমন কাজ জানে এমন কেউ অথবা কাজ শেখায় এরকম কোন প্রতিষ্ঠানের সাহায্য নিতে পারেন। একটু খোজ নিলেই দেখতে পাবেন যে, আমাদের দেশে এমন অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যেখানে আপনি এই কাজ শিখতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি যদি চান তাহলে http://independent-it.com/ এখান থেকে ও শিখতে পারেন এখানে অনেকগুলো কোর্স আছে। অনেকেই এখান থেকে কাজ শিখে কাজ করছে।

কাজ করব কোথায় ?

কাজ তো শিখলাম। এখন কথা হল কাজ করব কোথায় ? এর জন্য কি আমাকে কোন অফিসে যেতে হবে ? না এর জন্য আপনাকে কোথাও যেতে হবে না। আগেই আমি বলেছি যে এটা আপনি ঘরে বসে বসে করতে পারবেন। মানুষ যে রকম বাজার করতে বাজারে যায় ঠিক তেমনি এই কাজ করার জন্য অনলাইনে কিছু ওয়েব সাইট আছে যাদের কে মার্কেটপ্লেস বলা হয়। এখানে অনেকে বিভিন্ন কাজের বিজ্ঞপ্তি বা পোস্ট দিয়ে থাকে যাদেরকে বায়ার বা ক্লায়েন্ট বলা সেখান থেকে আপনাকে কাজ নিতে হবে। যেমন কেউ একজন একটা ওয়েব সাইট বানিয়ে দেয়ার জন্য পোস্ট দিয়েছে এখন আপনি ভাল ওয়েব সাইট তৈরী করতে পারেন তাহলে আপনি ঐ কাজটি পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন যাকে বিড বলা হয়। এরপর ঐ বায়ার আপনার সাথে কথা বলে আপনাকে কাজটি করতে দিবে। আপনি কাজটি করে দিলে তখন আপনাকে সে পেমেন্ট করে দিবে।

কিছু অনলাইন মার্কেটপ্লেসঃ-

1. https://www.upwork.com/
2. https://www.freelancer.com
3. https://ttv.microworkers.com/index/template
4. https://www.peopleperhour.com/
5. https://99designs.com/

ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করতে পারব ?

সবার ই একটা সাধারন প্রশ্ন থাকে যে এই কাজ করে আমি কত টাকা আয় করতে পারব। এটা নির্ভর করছে আপনি কি কাজ করবেন এবং কত টুকু কাজ করবেন তার উপর । অনালাইন এ একেক কাজের জন্য একেক রকম টাকা পাওয়া যায় আবার একি কাজের জন্য ক্ষেত্র বিশেষ এ ক্লায়েন্ট বিভিন্ন রকম পেমেন্ট দিয়ে থাকে । তবে আপনি যদি দৈনিক ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা কাজ করেন তাহলে আপনি মাসে হাজার থেকে লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন।

টাকা হাতে পাব কিভাবে ?

অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে যে টাকা পাব কি করে ? আপনি যদি কাজ করেন তাহলে এটা কোন সমস্যা ই না। আপনার স্ক্রিল / পাইওনিয়ার আইডি বা কার্ড থাকলেই হবে । এক্ষেত্রে আপনার ক্লায়েন্ট আপনার মার্কেটপ্লেস এ যে অ্যাকাউন্ট থাকবে সেখানে টাকা দিবে পরে আপনি সেখান থেকে আপনার  এ টাকা নিতে পারবেন এবং ক্যাশ করতে পারবেন।

কিছু কথা যা মনে রাখতে হবে;

অনেককেই দেখা যায় যে কাজ ভালমত না শিখেই আয় করার জন্য উঠে পড়ে লাগে। কিন্তু কোন কাজ না পেয়ে হতাশ হয়ে আগ্রহ হারিয়ে ফেলে । ফ্রিল্যান্সিং ব্যাপারটা এমন না যে চাইলাম আর টাকা আয় করা শুরু করে দিলাম। এর জন্য অনেক পরিশ্রম, ধৈর্য্য , এবং আগ্রহ থাকতে হবে । এই তিনটি না থাকলে আপনি কখনো সাফল্য অর্জন করতে পারবেন না। কারন আপনি যদি ভাল কাজ না জানেন তাহলে আপনাকে কেউ কাজ দিবে না। আবার দেখা যায় ঠিক মত বিড না করার ফলে অনেক বিড করে ও কোন কাজ পাওয়া যায় না। সেক্ষেত্রে হতাশ না হয়ে ধৈর্য্য ধরে দেখেশুনে বিড করতে হবে। এবং একটা কথা সবসময় মাথায় রাখবেন , যে কাজ পারবেন না সে কাজে কখনও বিড করবেন না।

শেষ কথা;
সবাই ভালমত কাজ করুন , দেশকে এগিয়ে নিয়ে যান। সবাই ভাল থাকুন। আর আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন।

লিখেছেন : রাসেল
ফেসবুক প্রোফাইল https://www.facebook.com/rasel.hossain.948

Write Your Comment

Ridoy Islam

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এবং ওয়ার্ডপ্রেস এর উপর সফলভাবে কাজ করছেন বেশ কয়েক বছর যাবত । তিনি সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর উপরেও কাজ করেন ।

Pin It on Pinterest

Shares
Share This