Online Earn Money

চলুন জেনে নিই যে কাজ গুলো জানা থাকলে আপনি সহজে ইন্টারনেট থেকে আয় করতে পারবেন ও কোথা থেকে আয় করতে পারবেন।

বর্তমানে ফ্রীল্যান্সিং একটি প্রিয় পেশা। বিশেষ করে তরুণদের কাছে । কোন বাধা-ধরা নিয়ম নেই, নেই নিয়ম করে অফিসে যাওয়ার কোন চাপ। স্বাধীন বা নিজের ইচ্ছে মত যখন, যেখান থেকে খুশি, শুধুমাত্র একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এবং একটি ইন্টারনেট কানেকশন থাকলে আপনার কাজ করতে পারবেন। তবে অনেকই আছে বলে থাকে “আমি তো অনেক চেষ্টা করলাম, কিন্ত আয় তো করতে পারলাম না” । হ্যাঁ, আপনি হয়ত আয় করতে পারেন নি কারণ আপনার দক্ষতা ও সঠিক দিক নির্দেশনার অভাব রয়েছে। তাই আপনাদের কে দক্ষতা  ফ্রীল্যান্সার হিসেবে গড়ে তুলতে ও সঠিক দিক নির্দেশনা দিতে আপনার হাতের কাছেই রয়েছে Independent IT যারা আপনাকে দিচ্ছে বাংলাদেশের সেরা ফ্রীল্যান্সিং ট্রেইনিং ও নিশ্চিত আয় করার নিশ্চয়তা। চলুন জেনে নিই কিছু কাজ যাতে সঠিকভাবে দক্ষতা থাকলে আপনি সহজেই ইন্টারনেট থেকে আয় করতে পারবেনঃ-

 

১) ডাটা এন্ট্রীঃ- এটা খুব একটা কঠিন কাজ নয় । আপনার যদি Microsoft Office Applications এর ওপর এবং ইন্টারনেট ব্রাউজিং এর দক্ষতা থাকে তবে আপনি আয় করতে পারবেন । এই সেক্টরে বিভিন্ন ধরনের কাজ যেমন Copy / Paste, Ecommerce Product Listing, Email Collection ইত্যাদি রকমের কাজ পাওয়া যায় ।

 

২) গ্রাফিক্স ডিজাইনিংঃ-  এই সেকশনে ভিবিন্ন ধরনের ডিজাইনিং এর কাজ পাওয়া যায় যেমনঃ- বিজিনেস কার্ড ডিজাইনিং, লোগো ডিজাইনিং, ব্যানার ডিজাইনিং, ক্লিপ আর্ট ডিজাইনিং, আইকন ডিজাইনিং । ডিজাইনিং এর কাজ করতে হলে আপনার Adobe Products বা  Adobe Photoshop, Adobe Illustrator, Adobe InDesign এর ওপর ভালো দ্দক্ষতা থাকতে হবে।

 

৩) ওয়েব ডিজাইন ডেভেলপমেন্টঃ- এখানে কাজ করতে হলে আপনাকে জানতে হবে html, css, php, javascript, ajax, jquary এবং অন্যান্য ফ্রেমওয়ার্ক । আপনি ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপ করেও আয় করতে পারেন ।

 

৪) ভিডিও এডিটিংঃ- আপনি ভিডিও এডিটিং যে কোন সফটওয়্যারে দক্ষ হলেই এই ক্ষাত থেকে আয় করতে পারবেন। অনলাইনে অনেক ধরনের ভিডিও এডিটিং এর সফটওয়্যার পাওয়া যায় ।

 

৫) আর্টিকেল রাইটিংঃ- আমরা ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা সবসময়ই কোন না কোন ওয়েব সাইট ভিজিট করে থাকি এবং দেখি যে কিছু কিছু ওয়েব সাইটে অনেক বড় বড় আর্টিকেল বা কন্টেন্ট থাকে । আপনার যদি ইংরেজী তে ভালো দক্ষতা থাকে, তবে আপনি এই আর্টিকেল লিখেও যায় করতে পারেন।

 

৬) এস.ই.ওঃ- এটি হচ্ছে কোন ওয়েব সাইট কে সার্চ ইঞ্জিনের কাছে গুরুত্বপূর্ণ করে তোলা । আপনার যদিন ইণতারনেট মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকলে আপনি SEO  এর কাজ করে আয় করতে পারবেন ।

 

চলুন এবার জেনে নিই কিছু মার্কেটপ্লেস যেখানে আপনি আপনার স্কিল বা দক্ষতা অনুযায়ী কাজ বেছে নিতে পারবেনঃ-

 

১) আপ ওয়ার্কঃ-  বর্তমান ত্রুণ প্রজন্মের ফ্রীল্যান্সারদের কাছে একটি প্রিয় মার্কেটপ্লেস হচ্ছে Upwork . এখানে বিভিন্ন কোম্পানী তাদের জব পোষ্ট করে থাকে এবং ফ্রীল্যান্সাররা তাদের স্কিল অনুযায়ী বিড করে কাজ জিতে নেয়।

 

২) ফ্রীল্যান্সার.কমঃ- এটিও আপ ওয়ার্ক -এর মতই কিন্ত এখানে দুইটি ভিন্ন উপায়ে আয় করা যায় । বিড করে প্রজেক্ট পাওয়া অথবা বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় যেমনঃ- লোগো ডিজাইনিং-এ অংশগ্রহন করে। Freelancer

 

৩) ফাইভারঃ- আমরা অনেকেই এটা ৫ ডলারের মার্কেটপ্লেস ভাবি কিন্ত এখানে আপনি আপনার কাজের স্যাম্পল দিয়ে গিগ পোষ্ট করে আপনি আপনার ইচ্ছে মত প্রাইস সেট করে দিতে পারবেন । যদি কেউ অর্ডার করে তবে আপনাকে আপনার নির্দিষ্ট করে দেয়া প্রাইসে অর্ডার করতে হবে। Fiverr

 

যেভাবে শুরু করবেনঃ-

 

ইন্টারনেট থেকে আয় করার প্রথম শর্ত হল যে আপনার দক্ষ বা অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হতে হবে । তাই প্রথমে আপনি ঠিক করে নিন যে আপনি কোন কাজ টি ভালো পারেন বা জানেন। কোন কাজের উপর আপনার দক্ষতা আছে । হ্যাঁ, ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের উপযুক্ত কাজ হতে হবে কারণ আপনি যদি ক্রিকেট বা ফুটবল খেলতে ভালো পারেন তবে আপনার জন্য সঠিক ঠিকানা ক্রিকেট বা ফুটবল ক্লাব, আর যদি আপনি কাজ শিখে আয় করতে চান তবে সেটা ভিন্ন কথা । আপনি প্রথমে যে মার্কেটপ্লেস এর কাজ করতে চান, সেই মার্কেটপ্লেস এর নিয়ম-কানুন সম্পর্কে জেনে নিন, তারপরে রেজিস্টার্ড ইউজার হয়ে যান । কাজ পাবার চেষ্টা করুণ, চেষ্টা চালিয়ে যান । হয়ত আজ কাজ পাবেন না, কিন্ত কাল পাবেন অথবা সঠিক নির্দেশনা নিয়ে চেষ্টা করুন। আপনি সফল হবেনই ।

Write Your Comment

Pin It on Pinterest

Shares
Share This